ঢাকামঙ্গলবার, ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আহত হয়েও আসামি ছাড়েনি ডিবির এসআই আমিনুল, গ্রেপ্তার ৪

দেওয়ান ইমন, সাভার
অক্টোবর ২৬, ২০২৩ ১০:২৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সাভারে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে দুই লাখ টাকার টাইলসভর্তি একটি পিকআপ লুটের ঘটনায় জড়িত চার ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশ। এসময় ছিনতাইকারীদের গ্রেপ্তার করতে গিয়ে গুরুতর আহত হন তিন পুলিশ সদস্য। আসামিদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে লুণ্ঠিত টাইলস ও পিকআপ।

ডিবি পুলিশ জানায়, রাত প্রায় ১টার দিকে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সড়ক থেকে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে ছিনতাইকারী। পিছু নেন ডিবি পুলিশের দূরদর্শী এসআই আমিনুল ইসলাম । এ সময় উঁচু দেয়াল টপকে পার হয়ে যায় ছিনতাইকারী। নাছোড়বান্দা ডিবি পুলিশের এসআই আমিনুল ইসলামও । দেয়াল টপকে জাপটে ধরেন অপরাধীকে। এসময় ডিবি পুলিশের এসআই ইসলামের বাঁ কনুই থেকে নিচের দিকে হাত উল্টে যায়। তীব্র যন্ত্রণা নিয়েও ছিনতাইকারীকে ছাড়েননি তিনি। এ সময় আহত হন আরও এক এএসআই ও পুলিশ কনস্টেবল।

বৃহস্পতিবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে সাভারের ঢাকা জেলা উত্তর ডিবি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য তুলে ধরেন ঢাকা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) মোবাশশিরা হাবীব খান। সংবাদ সম্মেলন শেষে গ্রেপ্তারকৃতদের ঢাকার আদালতে পাঠানো হয়।
এর আগে বুধবার (২৫ অক্টোবর) বিকেল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করে ঢাকার সাভার, আশুলিয়া, ধামরাই, কেরানীগঞ্জ ও মহানগরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে দুই লাখ টাকা মূল্যের টাইলস ও প্রায় সাড়ে আট লাখ টাকা মূল্যের পিকআপ ভ্যান উদ্ধার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের মো. কাউসার (২৪), মো. রফিকুল ইসলাম ফয়সাল (২৪), লক্ষ্মীপুরের রায়পুর থানার মো. মিরাজুল ইসলাম সুমন (৩৫), মাদারীপুরের রাজৈর থানার মেহেদী হাসান মৃধা (২৬)। তাদের মধ্যে সুমন ঢাকার কেরানীগঞ্জ এলাকায় ও মেহেদী সাভারের হেমায়েতপুর এলাকায় বসবাস করে আসছিলেন।

পুলিশ জানায়, এর আগে ১২ অক্টোবর রাত ১টার দিকে ঢাকার গাবতলী থেকে পিকআপে টাইলস বোঝাই করে রংপুরের উদ্দেশে রওনা হন পিকআপচালক শহিদুল ইসলাম।
রাত আড়াইটার দিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার প্রান্তিক গেট সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছলে একটি সিএনজি তার গাড়ির গতিরোধ করে। এ সময় অটোরিকশা থেকে চারজন নেমে অস্ত্রের মুখে চালক শহিদুলের হাত-পা ও মুখ বাঁধে। পরে পিকআপে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে বিশমাইল এলাকায় সড়কের পাশের জঙ্গলের একটি গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে পিকআপ নিয়ে চলে যায়। পরে পথচারীদের সহায়তায় উদ্ধার হন শহিদুল।

এদিকে ১৩ অক্টোবর এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন পিকআপ মালিক শামসুল ইসলাম। তিনি রাজধানীর মিরপুর দারুসসালাম এলাকার বাসিন্দা। ঘটনার ১৫ দিন পর অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তারের সময় হাত উল্টে গুরুতর আহত হন ঢাকা জেলার উত্তর ডিবি পুলিশের এসআই আমিনুল ইসলাম। এ সময় আরো আহত
হন এএসআই তাইফুল ইসলাম ও কনস্টেবল সজল মিয়া।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) মোবাশশিরা হাবীব খান বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। তারা একে অপরের সহযোগিতায় দীর্ঘদিন ধরে চলন্ত পিকআপ ছিনতাইয়ের কাজ করে আসছিল। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।