ঢাকাবৃহস্পতিবার, ২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মু্ক্তিযুদ্ধ শেষে বাংলাদেশে এসে বিভিন্ন স্থানে গান গেয়েছিলেন লতা

অনলাইন ডেস্ক
ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২২ ৩:৫৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ভারতীয় উপমহাদেশের সুরসম্রাজ্ঞীর খেতাব পাওয়া লতা মঙ্গেশকর ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শেষে বাংলাদেশে এসে বিভিন্ন স্থানে গান পরিবেশন করেছিলেন। সেই ঘটনার স্মৃতিচারণ করে লতা মঙ্গেশকর ২০১৯ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর টুইটারে বার্তা প্রকাশ করেছিলেন।


বাংলালাইভের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন


টুইটারে লতা মঙ্গেশকর ১৯৭১ সালে অজন্তা শিল্পীগোষ্ঠীর সঙ্গে তার বাংলাদেশ সফরের কথা উল্লেখ করেন। তিনি বিখ্যাত অভিনেতা সুনীল দত্তের গ্রুপের সঙ্গে এসেছিলেন। লতা লিখেছিলেন, ‘নমস্কার। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শেষ হতেই আমি সুনীল দত্তের গ্রুপের সঙ্গে বাংলাদেশ গিয়ে অনেক কার্যক্রমে অংশ নিয়েছিলাম। সে সময়ে সেনাবাহিনীর উড়োজাহাজে করে সব জায়গায় গিয়েছিলাম।’

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে বাংলাদেশ সরকারকে সহায়তার জন্য ভারতীয় শিল্পীরা এগিয়ে আসেন। সে সময় লতা মঙ্গেশকর ছাড়াও আশা ভোসলে, কিশোর কুমার, হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, মোহাম্মদ রফি, মান্না দে, সলিল চৌধুরী প্রমুখ বাংলাদেশের জন্য সংগীত পরিবেশন করেন।

লতা মঙ্গেশকর পরে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে গানও গেয়েছিলেন। ১৯৭২ সালে মমতাজ আলী ‘রক্তাক্ত বাংলা’ নামে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছিলেন। সেই চলচ্চিত্রে সলিল চৌধুরীর সুরে ‘ও দাদাভাই’ গানটি গেয়েছিলেন লতা মঙ্গেশকর।

স্বনামধন্য এই গায়িকা এক হাজারেরও বেশি ভারতীয় ছবিতে গান করেছেন। এ ছাড়া ভারতের ৩৬ আঞ্চলিক ও বিদেশি ভাষায় গান গাওয়ার একমাত্র রেকর্ডটি তারই।

প্রসঙ্গত, টানা প্রায় চার সপ্তাহ ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর রোববার সকাল সোয়া আটটার দিকে মুম্বাইয়ের ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেছেন তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৯২ বছর।