ঢাকামঙ্গলবার, ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

যমুনা নদীকে সংকুচিত করা আত্মঘাতী হবে: ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক
মার্চ ১৪, ২০২৩ ৩:০৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সরকার যমুনা নদীকে সংকুচিত করার যে প্রকল্প হাতে নিয়েছে, সেটি দেশের জন্য, বিশেষ করে যমুনা পাড়ের মানুষের জন্য চরম বিপদ ডেকে আনবে। সরকারের এ প্রকল্পকে আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।


বাংলালাইভের সর্বশেষ খবর পেতে Google News অনুসরণ করু


ফখরুল বলেন, হাজার বছর ধরে বহমান যমুনা নদীকে ছোট করার যে প্রকল্প, সেটি মারাত্মক আত্মঘাতী। এর ফলে পরিবেশের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়বে বলে মনে করি। এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়াল সভায় আলোচনা ও উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে বলেও জানান বিএনপি মহাসচিব।

মঙ্গলবার (১৪ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। গতকাল (সোমবার) রাতে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়াল সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত জানাতে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয় বলে জানান মির্জা ফখরুল।

তিনি বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সভাপতিত্বে গতকালের ভার্চুয়াল সভায় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সালাহ উদ্দিন আহমেদ, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

সভার সিদ্ধান্তগুলো তুলে ধরে মির্জা ফখরুল বলেন, গত ১১ মার্চ বিএনপি ঘোষিত দেশব্যাপী জেলা ও মহানগরে শান্তিপূর্ণ মানববন্ধনে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা পুলিশের ছত্রছায়ায় কয়েকটি জেলায় আকস্মিকভাবে ন্যক্কারজনক হামলা চালায়। মৌলভীবাজারে মানববন্ধন কর্মসূচির শুরুতেই আওয়ামী সন্ত্রাসীরা পুলিশের মদদে বিএনপির নেতাকর্মীর ওপরে সশস্ত্র হামলা চালায়। সেই হামলায় মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় নেতা নাছের রহমানসহ প্রায় ২৫ জন গুরুতর আহত হন। নাছের রহমানকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। সভায় এ হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় এবং অবিলম্বে হামলাকারীদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানানো হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, চলতি অর্থবছরের ছয় মাস রেন্টাল ও আইপিপি কেন্দ্রগুলোতে ৭০ শতাংশ উৎপাদন বন্ধ থাকলেও ক্যাপাসিটি চার্জের পেছনে প্রায় ২১৬ কোটি ডলার দিতে হবে। দুর্নীতিপরায়ন সরকার নিজেদের সম্পদ বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে চরম ক্ষতিকর এসব চুক্তি বাতিল না করে অতিরিক্ত ব্যয় করেই চলেছে, যা দেশের অর্থনীতির জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। এছাড়া ভারতের সঙ্গে উচ্চমূল্যে বিদ্যুৎ আমদানির চুক্তি দেশের স্বার্থবিরোধী হওয়ার পরও জনমতকে উপেক্ষা করে পরীক্ষামূলকভাবে ৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি বাংলাদেশের স্বার্থবিরোধী এবং জনমতের ওপর চপেটাঘাত, যা কোনোমতেই জনগণ মেনে নেবে না। অবিলম্বে আদানি বিদ্যুৎ আমদানি চুক্তি, ক্ষতিকর সব রেন্টাল ও আইপিপি চুক্তি বাতিলের জন্য জোর দাবি জানানো হয়।

ফখরুল বলেন, পবিত্র রমজানের কার্যক্রম বিষয়ে সভায় সিদ্ধান্ত হয়-আগের বছরগুলোর মতো এবারও এতিম ও আলেম-ওলামা, পেশাজীবী, বিশিষ্ট নাগরিক ও রাজনৈতিক নেতা এবং বাংলাদেশে অবস্থিত কূটনীতিকদের সম্মানে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হবে। সেই সঙ্গে আগামী ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

তিনি আরও বলেন, অনির্বাচিত, সরকারের দুর্নীতির খতিয়ান জনসমক্ষে উন্মোচন করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত সভায় গ্রহণ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ইসমাইল জবিউল্লাহ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন উপস্থিত ছিলেন।