‘কাঠবিড়ালি’ আমার স্বপ্নের প্রজেক্ট

  •   
  •   
বিনোদন ডেস্ক । বাংলালাইভ২৪.কম

জনপ্রিয় অভিনেত্রী অর্চিতা স্পর্শিয়া। এখন কাজ ছাড়া খুব একটা দর্শকের সামনে আসেন না তিনি। নিজস্ব গতিতে বেছে কাজ করছেন। এ মাসে মুক্তি পাবে তার অভিনীত ‘ইতি তোমারই ঢাকা’ সিনেমাটি। ডিসেম্বরে আসবে ‘কাঠবিড়ালি’। সম্প্রতি কাজ করেছেন একটি ওয়েব সিরিজে। এসব নিয়েই তার সঙ্গে কথা বলেছেন মাসিদ রণ। ছবি: শেখ সাদী

ওয়েব সিরিজ ‘নো কাপল এন্টি’…

কফিশপের নানা ঘটনা নিয়ে নির্মিত হয়েছে ওয়েব সিরিজ ‘নো কাপল এন্ট্রি’। গৌতম কৈরীর রচনায় এটি পরিচালনা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের সায়ান দাশগুপ্ত। আরও রয়েছেন আফসানা মিমি, পশ্চিমবঙ্গের কুশল চক্রবর্তী, সুমিত সমাদ্দার ও উদয় প্রতাপ সিং।

সম্প্রতি কলকাতার বেশ কয়েকটি স্থানে এর দৃশ্যধারণ শেষ হয়েছে। গল্পে দেখা যাবে, কফিশপের মালিক মিলির ব্যবহার ভালো হওয়ায় অল্প সময়ে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। কিন্তু তার . ক্যাফেতে প্রেমিক-প্রেমিকা জুটির প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ ছিল। এখানেই নিয়মিত আসেন রিমা। রিমার মাঝেই নিজের হারিয়ে যাওয়া অতীত খোঁজেন মিলি। আসেন তন্ময়। রিমাকে দেখে ভালো লাগে তার। এরপর প্রায়ই সেখানে তারা দেখা করতে যান। বিষয়টি চোখে পড়ে যায় মিলির।

তারা যেন আর না আসেন, তা স্পষ্ট জানিয়ে দেন তিনি। রিমা ও তন্ময় অবাক হন। পরে আবিষ্কার করেন, মিলির এমন সিদ্ধান্তের পেছনে ভিন্ন কারণ আছে। এগিয়ে যায় গল্প। আলফা-আইয়ের প্রযোজনায় নির্মিত এই সিরিজটি বায়োস্কোপে দেখা যাবে। এই সিরিজে থাকছে অর্ণবের সুরে তার নতুন একটি গান।

এ মাসে ‘ইতি তোমারই ঢাকা’…

১১ জন তরুণ নির্মাতা তাদের চোখে ঢাকাকে আবিষ্কার করেছেন ১১টি দৃষ্টিকোণ থেকে। এখানে আমি একটি গল্পের প্রধান চরিত্রে আছি। সেটি নির্মাণ করেছেন সাওকী। আমার চরিত্র একটি ইনডিপেন্ডেন্ট মেয়ের। সিনেমাটি এরইমধ্যে বিভিন্ন ফিল্ম ফেস্টে প্রশংসিত হয়েছে। এ মাসেই আমাদের দেশের দর্শক তা হলে দেখতে পাবেন। কিন্তু আমার মনে হয় সিনেমাটির আরও প্রচার দরকার। কারণ এটি সত্যিই খুব ভালো একটি কাজ হয়েছে। দর্শক জানতে না পারলে কীভাবে হলে আসবে দেখতে? এখানে অনেক প্রতিষ্ঠিত শিল্পী অভিনয় করেছেন। তাদের প্রত্যেকের উচিত নিজ জায়গা থেকে এটির প্রচার করা।

ডিসেম্বরে ‘কাঠবিড়ালি’

এটি আমার স্বপ্নের প্রজেক্ট। অনেক খেটে কাজ করেছি। নির্মাণ করেছেন মুক্তা। গল্পটি আমার খুব পছন্দ হয়। কিন্তু নতুন নির্মাতা বলে সে কোনো প্রযোজক পাচ্ছিল না। আমি নিজেও বেশকিছু প্রযোজকের কাছে গিয়েছি। কিন্তু কেউ একটি ভালো গল্প নির্মাণে রাজি হয়নি। বলেছে, নতুন নির্মাতা, তেমন কোনো স্টার নেই-এটা ওটা কত কি! পরে আমরা সিদ্ধান্ত নিই নিজেরাই কাজটি করব।

সিনেমার সঙ্গে জড়িত কেউই কোনো পারিশ্রমিক না নিয়েই কাজটি করেছি। আমরা প্রমাণ করতে চেয়েছি, ইচ্ছা থাকলে প্রযোজক ছাড়াও সিনেমা বানানো যায়। এ সিনেমা নিয়ে এখনই বেশি কিছু বলব না। মুক্তির আগে আরও অনেক কিছু বলার আছে এ নিয়ে।

Share via
Copy link
Powered by Social Snap