শরণখোলায় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত অনেক পরিবার এখন পায়নি সহায়তা

  •   
  •   
এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট করেসপন্ডেন্ট । বাংলালাইভ২৪.কম

বাগেরহাটের শরণখোলায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে এক সপ্তাহ পার হলেও অনেক সদস্যরা পায়নি কোন সরকারি সহযোগিতা। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেক পরিবার। এ উপজেলায় সম্পূর্ণ ও আংশিক মিলে এ উপজেলার ৯৭৬টি কাঁচা ও আধাপাকা ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আর্থিক হিসেবে যার পরিমান ১ কোটি ৯৬ লাখ টাকা।

এছাড়া কৃষিতে আমন দুইশ ২০ হেক্টর, খেসাড়ি, ৫০০ হেক্টর রবিশস্য ও শীতকালিন শাক-সবজির ১২ হেক্টরসহ প্রায় তিন কোটি টাকা। মৎস্য ক্ষেত্রে ১২২টি পুকুর ও ঘেরের ২৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা মূল্যের ছয় মেট্রিক টন চিংড়ি ও সাদা মাছ। পাকা সড়ক সম্পূর্ণ ও আংশিক মিলে ১৪ কিলোমিটার এবং কাঁচা সড়ক ২৫ কিলোমিটার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সূত্র জানায়, দুর্যোগ ও তার পরবর্তী সময়ে জরুরিভাবে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বিশুদ্ধ পানি, শুকনা খাবার ২৫০টি প্যাকেট, শিশু খাদ্য, গো খাদ্য সরবারহের জন্য ঘূর্ণিঝড়ের পর ১০ ও ১৩ নভেম্বর নগদ ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা, ৩০ মেট্রিক টন চাল এবং ২৭০ বান্ডেল ডেউটিন বরাদ্ধ দেয় জেলা প্রশাসক।

কথা উঠেছে ঘূর্ণিঝড়ের এক সপ্তাহের মধ্যেও সরকারি-বেসরকারি নানা সহায়তা থেকে বঞ্চিত রয়েছে বুলবুলের আঘাতে বিধস্ত উপজেলার অনেক পরিবারের সদস্যরা। এ ব্যাপারে শরণখোলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রনজিৎ সরকার বলেন, জেলা প্রশাসকের উপস্থিতিতে ইতোমধ্যে উপজেলার চারটি ইউনিয়নের বেশি ক্ষতিগ্রস্ত ২৫০ পরিবারকে এক বান করে ঢেউটিন, নগদ অর্থ ও চালসহ প্রায় সব কিছুই দেওয়া হয়েছে। তবে জনপ্রতিনিধিদের তৈরি তালিকা এখনও হাতে না পাওয়ায় একটু অসুবিধা হচ্ছে।

Share via
Copy link
Powered by Social Snap