ঢাকামঙ্গলবার, ১৯শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বড় ভাবীর সাথে পরকীয়া, বাধা দেওয়ায় দেবরকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

বাংলালাইভ ডেস্ক
মে ১৯, ২০২০ ৪:৪৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

অনলাইন ডেস্ক । বাংলালাইভ২৪.কম

কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার জোড়কানন পূর্ব ইউনিয়নের কুড়িয়াপরা গ্রামে সোমবার এশার নামাজের পর-পরকীয়া প্রেমে বাঁধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে ইয়াছিন নামের এক রাজ মিস্ত্রিকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার (১৯ মে) সদর দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম এ কথা নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুড়িয়াপরা এলাকার মাদকাসক্ত শাহজাহান প্রায়ই স্থানীয় চা দোকানদার আব্দুল হান্নানের স্ত্রী জেসমিনের সাথে দেখা করতে তার বাড়িতে আসতো। এক পর্যায়ে জেসমিন ও শাহজাহানের মধ্যে পরকীয়া সর্ম্পক তৈরি হয়। বিষয়টি জেসমিনের স্বামী আব্দুল হান্নান জানার পরও শাহজাহানের ভয়ে কোন প্রকার ব্যবস্থা নিতে পারত না।

বিষয়টি জানতে পেরে আব্দুল হান্নানের খালাতো ভাই মিজান ও ইয়াছিন প্রতিনিয়ত জেসমিনের পরকীয়ায় বাঁধা দিতো এবং শাহজাহানকে এই বাড়িতে আসতে নিষেধ করত। এ নিয়ে তাকে বেশ কয়েকবার কঠোর ভাবেও হুমকি দিয়েছে মিজান ও ইয়াছিন। ফলে তাদের বাঁধার কারণে মাদকাসক্ত ও জেসমিনের পরকিয়া প্রেমিক শাহজাহান আর এই বাড়িতে আসতে পারত না।

এরই সূত্র ধরে গতকাল সোমবার কুড়িয়া পরা গ্রামের মিজান এশার নামাজ পরে মসজিদ থেকে বের হয়ে বাড়ির দিকে আসলে-পূর্ব থেকে অপেক্ষায় থাকা মাদকাসক্ত শাহজাহান তার ভাড়াটে ৪/৫ জন সন্ত্রাসী নিয়ে অর্তকিত ভাবে হামলা চালায় মিজানের উপর।

মিজানের আত্মচিৎকারে তার ছোট ভাই ইয়াছিন মিজানকে বাঁচাতে এগিয়ে আসে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসী শাহজাহান ও তার সঙ্গীয় সন্ত্রাসীরা ইয়াছিনের তল পেটে ছুরি দিয়ে কয়েকটি আঘাত করে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় রক্তাক্ত অবস্থায় ইয়াছিনকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হত্যাকান্ডের ঘটনাটি শুনে রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন কুমিল্লা সদর দক্ষিণ সার্কেলের এএসপি প্রশান্ত পাল, সদর দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম, জোড়কানন পূর্ব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হারিছ মিয়াসহ প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা। মঙ্গলবার সকালে সদর দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম হত্যাকান্ডের কথা নিশ্চিত করে জানান, নিহতের ভাই মামলা করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে।

তিনি বলেন- শাহজাহান নিহত ইয়াছিনের বড় ভাবীর সাথে পরকীয়া লিপ্ত ছিল। পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়া কে কেন্দ্র করে এ হত্যাকান্ড ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ঘাতক শাহজাহানকে আটক করতে আমরা প্রচেষ্টা চালাচ্ছি।