ইউনাইটেড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা

  •   
  •   

অনলাইন ডেস্ক । বাংলালাইভ২৪.কম

রাজধানীর গুলশানে অবস্থিত ইউনাইটেড হাসপাতালে করোনা ইউনিটে অগ্নিকাণ্ডে ৫ রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

মামলায় অবহেলাজনিত অগ্নিকাণ্ডের অভিযোগ আনা হয়েছে। বলা হয়েছে, হাসপাতাল কর্তৃক্ষের অবহেলার কারণেই আইসোলেশন ইউনিটে আগুনের ঘটনা ঘটে।

আগুনে মারা যাওয়া একজনের স্বজন (ভেরুন এন্থনি পলের মেয়ের জামাই রোনাল নিকি গোমেজ) বাদী হয়ে বুধবার রাতে গুলশার থানায় এ মামলাটি করেন। মামলা নম্বর ৩।

বিষয়টি নিশ্চিত করে গুলশান থানার ওসি কামরুজ্জামান বলেন, মামলায় কারো নাম উল্লেখ করা হয়নি। তবে হাসপাতালের চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, পরিচালক, কর্তব্যরত ডাক্তার ও নার্সদের আসামি করা হয়েছে।

গত ২৭ মে ইউনাইটেড হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে (মূল ভবনের বাইরে স্থাপিত) আগুন লাগে। এ ঘটনায় ৫ জনের মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস।

অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় যাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয় তারা হলেন- রিয়াজুল আলম (৪৫), খোদেজা বেগম (৭০), ভেরুন এন্থনি পল (৭৪), মনির হোসেন (৭৫) ও মাহাবুব (৫০)। তারা সবাই হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে ভর্তি ছিলেন।

অগ্নিকাণ্ডের পরপরই ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে বলা হয়, হাসপাতালের অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা যথাযথ ছিল না। বেশিরভাগ অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রই ছিল মেয়াদ উত্তীর্ণ।

এ বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, হাসপাতালসংলগ্ন তবে মূল ভবনের বাইরের আইসোলেশন ইউনিটে সম্ভবত শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে অগ্নিকাণ্ড সৃষ্টি হয়। কয়েক মিনিটের মধ্যে আগুন আইসোলেশন ইউনিটের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে।

সেই সময় আবহাওয়া খারাপ ছিল ও বিদ্যুৎ চমকাচ্ছিল। বাতাসের তীব্রতায় আগুন প্রচণ্ড দ্রুততার সঙ্গে ছড়িয়ে পাড়ার কারণে সেখানে ভর্তি ৫ জন রোগীকে বাইরে বের করে আনা সম্ভব হয়নি।

মেয়াদ উত্তীর্ণ অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রের বিষয়ে ইউনাইটেড কর্তপক্ষ জানায়, করোনা পরিস্থিতির কারণে তারা সেখানে নতুন অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র স্থাপন করতে পারেননি।

Share via
Copy link
Powered by Social Snap