1. banglalivedesk@gmail.com : banglalive :
  2. emonbanglatv@gmail.com : Dewan Emon : Dewan Emon
ব্রিজ নির্মাণের ৯ বছর অতিবাহিত হলেও নির্মাণ হয়নি রাস্তা
মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০৩:১৬ অপরাহ্ন

ব্রিজ নির্মাণের ৯ বছর অতিবাহিত হলেও নির্মাণ হয়নি রাস্তা

সাজ্জাদুল তুহিন, নওগাঁ করেসপন্ডেন্ট । বাংলালাইভ২৪.কম
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

নওগাঁ-ঢাকা সড়কের নওগাঁয় যানজট কমানোর জন্যে নওগাঁ সদরের দক্ষিণ দিয়ে বাইপাস সড়ক নির্মাণের জন্যে পিরোজপুর-শিয়ালা ঘাটে তুলসীগঙ্গা নদীর উপর এলজিইডি থেকে প্রায় ১ কোটি ২৫ লাখ টাকা খরচে ব্রিজ নির্মাণ করা হয়।

ব্রিজটি নির্মাণ হলে নওগাঁ শহরের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হতো। ব্রিজ নির্মাণের ৯ বছর অতিবাহিত হলেও ব্রিজের পশ্চিম পাশে রাস্তা নির্মাণ করার উদ্যোগ নেয়নি কোন বিভাগ। এমন পরিস্থিতিতে দ্রুত রাস্তা নির্মাণের দাবি জানিয়েছে স্থানীয়রা।

জানা গেছে, নওগাঁ-ঢাকা সড়কের নওগাঁয় যানজট কমানোর জন্যে প্রয়াত জননেতা আব্দুল জলিল নওগাঁর দক্ষিণ দিয়ে বাইপাস সড়ক নির্মাণের উদ্যোগ নেন। এরই অংশ হিসেবে স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তর (এলজিইডি) থেকে ১ কোটি ২৪ লাখ ৩৯ হাজার ৩শ’ ৯৪ টাকা খরচে ৩৬ মিটার ২০১১ সালে সদর উপজেলার পিরোজপুর-শিয়ালা ঘাটে তুলসীগঙ্গা নদীর উপর ব্রিজ নির্মাণ করা হয়।

৩০ ডিসেম্বর ব্রিজটির উদ্বোধন করেন সাবেক আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বাণিজ্য মন্ত্রী প্রয়াত জননেতা আব্দুল জলিল। পরের বছর তিনি মারা যাওয়ায় ৯ বছর পর হলেও ব্রিজটি পশ্চিম দিকে আর রাস্তা নির্মাণ করার উদ্যোগ নেয়নি কোন বিভাগ। ফলে স্থানীয়দের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

স্থানীয় চয়েন মুন্সি জানান, প্রয়াত জননেতা আব্দুল জলিল মারা যাওয়ায় রাস্তাটি নির্মাণের জন্যে জেলা পরিষদ, এলজিইডি, পৌর সভায় একাধিকবার বলা হলেও কোনো বিভাগ এগিয়ে আসেননি। ফলে এক দেড় কিলোমিটার রাস্তার জন্যে ৬/৭ কিলোমিটার ঘুরে নওগাঁ শহরে যেতে হয়। একদিকে সময় দেড়/দুই ঘন্টা বেশি লাগে অন্য দিকে টাকাও বেশি খরচ হয়।

শিয়ালাপাড়ার দিলিপ কুমার জানান, পরে থাকা ব্রিজটিতে জ্বালানী শুকানোসহ নিত্য প্রয়োজনীয় কাজ করে থাকেন স্থানীয়রা। মাত্র এক-দেড় কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হলে নওগাঁয় শহরের সাথে স্থানীয়দের যোগাযোগ সহজ হবে অন্যদিকে নওগাঁ-ঢাকা সড়কের নওগাঁয় যানজট কমবে।

দিলিপ কুমার, নাছিমুল হক, কাশেম উদ্দিনসহ অন্যরা জানান, ব্রিজের পশ্চিমে রাস্তা না থাকায় ও নদীর পশ্চিম পাশে বাঁধ না থাকায় তাদের বর্ষা মৌমুসে ধান ডুবে যায়। আবার মাঠের ধানসহ বিভিন্ন ফসল কাদা-পানির মধ্যে আনা-নেওয়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। আবার তাদের উৎপাদিত ধানসহ সবজি নওগাঁ শহরের নিয়ে যেতে অতিরিক্ত ভাড়া বেশি লাগে।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তরের নওগাঁর প্রকৌশলী মাকসুদুল আলম জানান, স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তর থেকে ব্রিজটি নির্মাণ করা হলেও অধিদপ্তরের নতুন নিয়মে দুই কিলোমিটারের চেয়ে কম রাস্তা নির্মাণ করা সম্ভব নয়। তবে তিনিও দ্রুত যে কোন বিভাগ থেকে রাস্তাটি নির্মাণের দাবি জানান।

পৌরসভা মেয়র নাজমুল হক সনি জানান, ইত্যেমধ্যে রাস্তাটি নির্মাণে এলজিএসপি প্রকল্পে আওয়ায় জমা দেওয়া হয়েছে এবং রাস্তাটি দ্রুত নির্মাণের আশ্বাস দেন এই পৌর মেয়র।

 

এ জাতীয় আরো খবর

সতর্কতা

বাংলালাইভ২৪.কমে প্রকাশিত বা প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© All rights reserved © 2019 BanglaLive24
Theme Developed BY ThemesBazar.Com
themesbazarbanglalive1