1. banglalivedesk@gmail.com : banglalive :
  2. emonbanglatv@gmail.com : Dewan Emon : Dewan Emon
  3. emonnagorik@gmail.com : Rajbari Correspondent : Rajbari Correspondent
নওগাঁয় প্রভাবশালীদের দখলে যাত্রীছাউনির জায়গা
সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ১১:১৪ পূর্বাহ্ন

নওগাঁয় প্রভাবশালীদের দখলে যাত্রীছাউনির জায়গা

সাজ্জাদুল তুহিন, নওগাঁ করেসপন্ডেন্ট। বাংলালাইভ২৪.কম
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০

নওগাঁর পশ্চিম ঢাকা রোডের যাত্রীছাউনির জায়গা অবৈধভাবে দখলে নিয়ে ব্যক্তিগত অফিস ও দোকান তৈরি করেছেন স্থানীয় প্রভাবশালীরা। এতে করে প্রতিনিয়তই শত শত যাত্রী সেখানে জায়গা না পেয়ে আশাপাশের চায়ের ও পানের দোকানে বসতে বাধ্য হচ্ছেন। এতে অনেক সময় তারা কটূ কথার শিকার হচ্ছেন।

এই সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন যাত্রীরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে অবস্থিত পশ্চিম ঢাকা রোড। এই জায়গাটি প্রধানত সান্তাহার-ঢাকা রোড নামেই বেশি পরিচিত। নওগাঁর রাণীনগর, আত্রাই ও পাশের আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার থেকে মানুষ এই স্থানে আসে এবং এখান থেকে ঢাকা, বগুড়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাওয়া-আসা করে। ঢাকা রোড থেকে নওগাঁ শহরের দূরত্ব প্রায় ৪ কিলোমিটার। তাই অধিকাংশ মানুষই বাসের জন্য এই স্থানে অপেক্ষা করে। ৯০ দশকে সড়ক ও জনপথের এই জায়গায় জেলা পরিষদের অর্থায়নে গণশৌচাগারসহ একটি যাত্রীছাউনি নির্মাণ করা হয়।

গত বছরের প্রথম দিকে নওগাঁ-বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কটি প্রশস্তকরণের কাজ শুরু হলে ঢাকা রোডের এই যাত্রীছাউনি ও রাস্তার দুই পাশের অবৈধ স্থাপনাগুলো ভেঙে ফেলে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। কিন্তু পরে যাত্রীছাউনির জায়গাটি বোয়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের স্থানীয় মেম্বার রাজু আহমেদসহ প্রভাবশালীরা দখল করে ব্যক্তিগত অফিস ও দোকান ঘর নির্মাণ করেন। কিন্তু যাত্রীদের অপেক্ষার কোনও জায়গা না থাকায় এখানে আসা শত শত যাত্রী সাধারণের প্রতিনিয়ত চরম বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে। অনেক সময় বিভিন্ন চায়ের কিংবা পানের দোকানে কোনও নারী যাত্রী বসে অপেক্ষা করলে দোকানদার এমন কি আশেপাশের মানুষ দ্বারা ইভটিজিং ও যৌন হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে।

যাত্রী সুলতানা বলেন, ‘এই জায়গাটি খুবই জনগুরুত্বপূর্ণ। এখানে পূর্বে একটি জরাজীর্ণ যাত্রীছাউনি ছিল। তখন কোনও যাত্রীকে অপেক্ষা করার জন্য অসুবিধায় পড়তে হয়নি। কিন্তু যাত্রী ছাউনিটি ভেঙে ফেলার কারণে যাত্রীদের বিশেষ করে নারী যাত্রীদের নানা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। প্রাকৃতিক প্রয়োজন সম্পন্ন করার কোনও ব্যবস্থা নেই। এছাড়া নারী যাত্রীদের দোকানদার ও আশেপাশের মানুষ দ্বারা ইভটিজিং ও যৌন হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে; যা যাত্রী সাধারণের জন্য খুবই কষ্টকর একটি বিষয়।’

অন্য যাত্রী আক্কাজ আলী বলেন, ‘প্রতিদিন ভোর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত সাধারণ মানুষ দেশের বিভিন্ন স্থানে চলাচলের জন্য যানবাহনের জন্য এখানে অপেক্ষা করেন। তাই এমন একটি ব্যস্ততম জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে অতি দ্রুত নিরাপত্তা বেষ্টনিবিশিষ্ট একটি আধুনিক মানের যাত্রীছাউনি নির্মাণের জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ করছি।’
স্থানীয় মেম্বার রাজু আহমেদ বলেন, ‘আমি যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে যাত্রীছাউনির জায়গা নিয়ে অস্থায়ীভাবে টিন দিয়ে অফিস ও দোকান ঘর তৈরি করেছি।’

নওগাঁ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজেদুর রহমান সাজিদ বলেন, ‘রাস্তা প্রশস্তকরণের জন্য যাত্রীছাউনিটি ভেঙে ফেলা হয়। সেই সরকারি জায়গা যদি কেউ অবৈধভাবে দখল করে স্থাপনা তৈরি করেন, তাহলে তা পরিদর্শন সাপেক্ষে মুক্ত করা হবে। তবে এমন একটি জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে যাত্রী সাধারণের অপেক্ষার জন্য একটি আধুনিক মানসম্পন্ন যাত্রীছাউনি নির্মাণ করা প্রয়োজন।’

নওগাঁ জেলা পরিষদের সচিব এটিএম আব্দুল্লাহেল বাকী বলেন, ‘জায়গাটি জেলা পরিষদের নয়। সড়ক ও জনপথ বিভাগের ছিল। তাই রাস্তা প্রশস্তকরণের জন্য সড়ক বিভাগ যাত্রীছাউনিটি ভেঙে ফেলেছে। তবে জনগুরুত্বপূর্ণ এই স্থানে একটি আধুনিক মানের যাত্রীছাউনি নির্মাণ করা প্রয়োজন। জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে নতুন করে যাত্রীছাউনি তৈরি করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। কিন্তু জেলা পরিষদের নিজস্ব কোনও জায়গা না থাকায় তা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে এই স্থানে একটি যাত্রীছাউনি নির্মাণের প্রয়োজন মর্মে আমাদের কাছে লিখিত আবেদন দিলে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সরকার বরাবর সুপারিশ করবো।’

 

এ জাতীয় আরো খবর

সতর্কতা

বাংলালাইভ২৪.কমে প্রকাশিত বা প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© All rights reserved © 2019 BanglaLive24
Theme Developed BY ThemesBazar.Com
themesbazarbanglalive1