1. banglalivedesk@gmail.com : banglalive :
  2. emonbanglatv@gmail.com : Dewan Emon : Dewan Emon
  3. emonnagorik@gmail.com : Rajbari Correspondent : Rajbari Correspondent
মণিরামপুরে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার উপর হামলা, অভিযুক্ত সেকমো আটক
মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১, ০২:১৮ পূর্বাহ্ন

মণিরামপুরে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার উপর হামলা, অভিযুক্ত সেকমো আটক

আব্দুল্লাহ আল হাসিব, মণিরামপুর করেসপন্ডেন্ট । বাংলালাইভ২৪.কম
  • আপডেট সময় রবিবার, ৩ জানুয়ারী, ২০২১

যশোরের মণিরামপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শুভ্রারানী দেবনাথের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। রবিবার (৩ জানুয়ারি) সকাল পৌনে দশটার দিকে মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে ঘটনাটি ঘটে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ অভিযুক্ত উপ সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার (সেকমো) আবু তৌহিদকে গ্রেফতার করেছে। হামলার ঘটনায় ডাঃ শুভ্রারানী দেবনাথ বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

জানা যায়, সেকমো আবু তৌহিদ উপজেলার নোয়ালী পারখাজুরা গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে। তিনি রাজগঞ্জ উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে কর্মরত।

শুভ্রারানী বলেন, “সকালে হাসপাতালের প্রধান ফটকে দাঁড়িয়ে কয়েকজন চিকিৎসকের সাথে আমি ফুলবাগানের কাজ দেখছিলাম। এসময় মোটরসাইকেলে করে সেখানে আসেন আবু তৌহিদ। আমি তখন তার কাছে জানতে চাই, উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্র ছেড়ে কেন সে এখানে এসেছে। কোনো উত্তর না দিয়ে সে তার হাতে থাকা একটি তালা আমার দিকে ছুড়ে দেয়। এরপর গালিগালাজ করতে করতে সে আমার মুখে ও মাথায় কয়েকটি চড়-থাপ্পড় মারে। তখন সাথে থাকা চিকিৎসকরা ও আমার গাড়ি চালক মুসা তাকে থামানোর চেষ্টা করেন।”

শুভ্রারানী দেবনাথের গাড়িচালক আবু মুসা বলেন, “মোটরসাইকেলে করে এসে তৌহিদ ম্যাডামকে মারপিট করে। ওইসময় আমি তাকে জাপটে ধরে ম্যাডামকে রক্ষা করি।”

এদিকে উপজেলার প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তার ওপর হামলার ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে অভিযুক্ত সেমকো তৌহিদকে মারপিট করে একটি কক্ষে আটকে রাখেন হাসপাতালের কর্মীরা। পরে পুলিশ সেখানে হাজির হয়ে তাকে উদ্ধার করে। হাসপাতালের একাধিক স্টাফ জানান, শনিবার (২ জানুয়ারি) একবার হাসপাতালে আসেন তৌহিদ। এরপর ডা. শুভ্রার সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা হয়। তখন সিভিল সার্জনও হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন।

তারা জানান, রাজগঞ্জ কেন্দ্রে যে কক্ষে তৌহিদ বসেন, সকালে সেই কক্ষটি তালাবদ্ধ পেয়ে হাসপাতালে আসেন তিনি। পথে চণ্ডিপুর কমিউনিটি সেন্টার বন্ধ দেখতে পান। সেন্টার বন্ধ থাকলেও তালা খোলা দেখতে পেয়ে তিনি সেই তালা সঙ্গে নিয়ে হাসপাতালে আসেন। এরপর ডা. শুভ্রার কাছে কমিউনিটি সেন্টার বন্ধ থাকার কারণ জানতে চান।

শুভ্রারানী দেবনাথ বলেন, রাজাগঞ্জ উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে দায়িত্বরত চিকিৎসক সুমন গুপ্ত অসুস্থ হয়ে খুলনায় চিকিৎসা নিচ্ছেন। সেইকারণে সেকমো তৌহিদের সেখানে ডিউটি করার কথা।

টিএইচওর উপর হামলার খবর পেয়ে মণিরামপুর হাসপাতালে আসেন যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন।

সিভিল সার্জন বলেন, “খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। পুলিশ অভিযুক্তকে আটক করেছে। থানায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত আবু তৌহিদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থাও নেওয়া হবে।”

অভিযুক্ত আবু তৌহিদ দাবি করে বলেন, “হাসপাতালে ঢোকার পর কী হয়েছে আমি বলতে পারব না। তবে আমি ম্যাডামকে মারিনি। হাসপাতালের সবাই আমাকে খুব মেরেছে।”

মণিরামপুর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, “সরকারি কাজে বাধা দেওয়া ও উপজেলার প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তার ওপর হামলার ঘটনায় শুভ্রারানী মামলা করেছেন। হামলাকারী থানা হেফাজতে রয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।”

 

এ জাতীয় আরো খবর

সতর্কতা

বাংলালাইভ২৪.কমে প্রকাশিত বা প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© All rights reserved © 2019 BanglaLive24
Theme Developed BY ThemesBazar.Com
themesbazarbanglalive1