1. banglalivedesk@gmail.com : banglalive :
  2. emonbanglatv@gmail.com : Dewan Emon : Dewan Emon
  3. emonnagorik@gmail.com : Rajbari Correspondent : Rajbari Correspondent
মোড়েলগঞ্জে হোগলাপাশায় আ,লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশায় একাধিক প্রার্থী
রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৬:৫৮ অপরাহ্ন

মোড়েলগঞ্জে হোগলাপাশায় আ,লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশায় একাধিক প্রার্থী

এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট করেসপন্ডেন্ট । বাংলালাইভ২৪.কম
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে হোগলাপাশা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশায় একাধিক প্রার্থী মাঠে প্রচারণায় তুঙ্গে। সবত্রই চলছে নির্বাচনী আলোচনা। নতুনরা চায় পরিবর্তন। বর্তমান চেয়ারম্যান বিগত ৫ বছরে উন্নয়ন চিত্র তুলে ধওে চাচ্ছেন দলীয় প্রতিক।

দলীয় প্রত্যাশীরা হলেন বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রেজাউল ইসলাম নান্না, ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক ফরিদুল ইসলাম ফরিদ, মনি শংকর হালদার, আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাড. মিজানুর রহমান খোকন ও সাবেক চেয়ারম্যান ইলিয়াস শেখ, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাঈম আল মামুন লিয়ন।

সরেজমিনে হোগলাপাশা ইউনিয়ন। দীর্ঘদিনের স্মৃতি বিজড়িত এ ইউনিয়নটিতে রয়েছে ইতিহাস ঐতির্য্য আউলিয়া পীর হযরত শাহা কামাল দরবার শরীফ। মোট জনসংখ্যা রয়েছে প্রায় ১৮ হাজার, ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার। নারী পুরুষ প্রায় সমান।

অধিকাংশ মানুষের আয়ের উৎস কৃষি নির্ভরশীলতার উপর। স্বাধীনতার পরবর্তীতে এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সমর্থিত চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে ৩ বারে। বিএনপির সমর্থিত ৪ বার। সর্বশেষ ২০১৬ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বর্তমান চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এখনও এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সমর্থনে শতকরা ৬০ ভাগ ভোটার রয়েছে বলে নেতাকর্মীরা মনে করছেন।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বর্তমান চেয়ারম্যান রেজাউল ইসলাম নান্না বলেন, দলের বিদ্রেহী হিসেবে নির্বাচন করিনি। দলীয় প্রতিক একটি রাজাকার পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ায় কর্মীদের ক্ষোভের মুখে প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করে বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার গ্রাম হবে শহর বাস্তবায়নে বিগত ৫ বছরে ইউনিয়নের উন্নয়নমুখি ৩০ কোটি টাকার কাজ সঠিকভাবে বাস্তবায়িত হয়েছে। দলের দুঃসময়ে জোট সরকারের আমলে বিভিন্ন মামলায় হয়রানি নির্যাতিত হয়েও কখনও দলের হাল ছাড়েনি। কর্মীদেরকে সংগঠিত করে রেখেছেন। ১৯ বছর ধরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। দলের ত্যাগী নিবেদিত একজন কর্মী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন তিনি।

ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক ফরিদুল ইসলাম ফরিদ বলেন, ছাত্রজীবন থেকে ছাত্ররাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হয়ে ৭ বছর ধরে ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি, পুর্নরায় আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০১ সালে মামলা হামলার শিকার হয়েও দলের সাথে মিশে আছি।

সাধারণ কর্মীসহ জনগনের ভালবাসায় দলীয় মনোনয়ন দাবি করছেন। বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর পরিকল্পনা গ্রাম হবে শহর এটি বাস্তবায়নে নতুন নেতৃত্বের মাধ্যমে পরিবর্তন প্রয়োজন।শিক্ষক মনি শংকর হালদার বলেন, দলের কমিটিতে কোন পদে না থাকলেও একজন কর্মী হিসেবে মনোনয়ন দাবি করছেন তিনি।

ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাঈম আল মামুন লিয়ন বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন কর্মী হিসেবে পারিবারিক সূত্রে তার পিতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য থাকার সুবাধে। ছাত্রজীবন থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হয়ে। দীর্ঘদিন ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছন তিনি। সাধারণ কর্মীদেরকে সাথে নিয়েই দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন।

জেলা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি লীগের উপদেষ্টা এ্যাড. মিজানুর রহমান খোকন বলেন, ৯ বছর ধরে ইউয়িন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ২০০১ জোট সরকারের আমলে তার পরিবার সবচেয়ে বেশী নির্যাতিত হয়েছেন। দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন তিনি।

এ জাতীয় আরো খবর

সতর্কতা

বাংলালাইভ২৪.কমে প্রকাশিত বা প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

বিজ্ঞাপন

© All rights reserved © 2019 BanglaLive24
Theme Developed BY ThemesBazar.Com
themesbazarbanglalive1