ঢাকাসোমবার, ১৮ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সকল মানুষের কাছে উন্নয়নের সুফল পৌঁছে দেয়া হবে: মন্ত্রী তাজুল

Link Copied!

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী মো.তাজুল ইসলাম বলেছেন, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে। সকল মানুষের কাছে উন্নয়নের সুফল পৌঁছে দেয়া হবে। মঙ্গলবার বিকেল চার টায় উপজেলার বালিয়াতলী পয়েন্টে আন্ধারমানিক নদীর উপর নির্মিত সৈয়দ নজরুল ইসলাম সেতু পরিদর্শন শেষে স্থানীয় আওয়ামীলীগ কার্যলয়ে এক মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী মো.তাজুল ইসলাম এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর ২১ বছর পাকিস্তানি মদদে এবং তাদের পৃষ্ঠপোশকতায় আমাদেরকে গোলাম বানিয়ে রেখেছিল। দেশের সব উন্নয়ন বন্ধ করে রেখেছিল। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর বাংলদেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে দেশের উন্নয়নে কাজ করেছে। তাই বাংলাদেশ আজকে বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচিত হয়েছে।

মন্ত্রী আরো বলেন, আজকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে ক্ষমতা লাভ করেছে। এছাড়া খাদ্যে সয়ংসম্পুর্নতা অর্জন করেছে। ¯^াস্থ্য ও সমাজ ব্যাবস্থার উন্নতিসহ সকল ক্ষেত্রে সামগ্রীক উন্নয়ণ লাভ করেছে। পৃথিবীর মানুষ আজকে তাকিয়ে আছে বাংলাদেশের দিকে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্রে মন্ত্রী পরিষদের সদস্য বৃন্দ এবং সংসদ সদস্যগন নিরলস পরিশ্রম করে এলাকার উন্নয়নে করে যাচ্ছে। এ উন্নয়নের ধারা যাতে কোন ভাবে ব্যাহত না হয় এ জন্য আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ সহ সকল নেতাকর্মীকে ঐক্যভাবে সতর্ক থাকার আহবান জানান।

এ সময় পটুয়াখালী -৪ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মো. মহিবুর রহমান মহিব এমপি, স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দিন আহম্মেদ, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো.আব্দুর রশিদ খান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম রাকিবুল আহসান,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মোহম্মদ শহিদুল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব তালুকদার,কলাপাড়া পৌর মেয়র বিপুল চন্দ্র হাওলাদার,উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ ড.শহিদুল ইসলাম বিশ্বাস,নির্মল নন্দী সহউপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, সেচ্ছা সেবক লীগ, কৃষক লীগ শ্রমীক লীগ নেতা কর্মী ও বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী এর আগে হেলিকপ্টার যোগে সাড়ে তিনটায় কলাপাড়ায় এসে পৌছান। পরে তিনি সড়ক পথে সৈয়দ নজরুল ইসলাম সেতু পরিদর্শন শেষে স্থানীয় আওয়ামীলীগ কার্যলয়ে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হয়। বিকেল সাড়ে চার দিকে মন্ত্রী ফের হেলিকপ্টার যোগে ঢাকার উদ্যেশে রওনা করেন।